Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৫ মার্চ ২০১৮

প্রফেসর ড. সৈয়দ মো: গোলাম ফারুক

প্রফেসর ড. সৈয়দ মোঃ গোলাম ফারুক, মহাপরিচালক, জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি) নায়েম) -এর জীবন বৃত্তান্ত

প্রফেসর ড. সৈয়দ মোঃ গোলাম ফারুক ১৯৯৩ সালে বিসিএস) সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারে ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরূ করেন। ২০০৬ সালে তিনি প্রফেসর হিসেবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে যোগদান করেন। ২০০৮ সালে তিনি ৩য় গ্রেড লাভ করেন। দীর্ঘ সরকারি চাকরী জীবনে তিনি বাংলাদেশের বিভিন্ন সরকারী কলেজে শিক্ষকতার পাশাপাশি  লিয়েনে সৌদি আরবে কিং খালিদ বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ইংরেজির অধ্যাপক হিসেবে চাকরী করেছেন। নায়েমে যোগদানের পূর্বে তিনি পরিচালক হিসেবে মাধ্যমিক ও উচচ শিক্ষা অধিদপ্তর, চট্টগ্রাম অঞ্চলে কর্মরত ছিলেন।

তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। পরবর্তীতে তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফলিত ভাষাবিজ্ঞান ও ইংরেজি ভাষা শিক্ষাদান-এর উপর পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। তাঁর পিএইচডি পরবর্তী গবেষণার বিষয়বস্তু ও ছিল একই এবং উক্ত বিষয়ে তাঁর ১৫টি গবেষণা প্রবন্ধ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকশিত হয়েছে।  তিনি প্রায় ২০টিরও অধিক আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে অংশগ্রহণ করেছেন। নায়েম কর্তৃক পরিচালিত বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ ছাড়াও তিনি দেশে বিদেশে বেশ কিছু প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশগ্রহণ করেছেন।

তাঁর প্রকশিত উল্লেখযোগ্য বইসমুহ হচ্ছে : )(বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত প্লেটো: দর্শন ও রাষ্ট্যচিন্তা, )( তার বই-অস্তিত্ববাদের শ্রষ্টা সোরেন কিয়ের্কেগার্ড-প্রথম আলো কর্তৃক তরুনদের রচিত অন্যতম শ্রেষ্ঠ বই হিসেবে বিবেচিত হয়েছে, )(  বৈজ্ঞানিক কল্প কাহিনী- দিবালোকে দুঃস্বপ্ন,  )(  দি মুরং:  এন এথনিক মাইনোরিটি অব বাংলাদেশ - প্রকরণগ্রন্থ/মনোগ্রফ এবং  )( ইংলিশ গ্রামার এন্ড কম্পজিশন  )জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড কর্তৃক একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর জন্য প্রকাশিত(


Share with :

Facebook Facebook